শিরোনামঃ
দেড় কিলোমিটার হেঁটে চাচাকে মাথায় করে হাসপাতালে নিলেন ভাতিজা আটকে পড়াদের আমিরাতে ফেরার জন্য নির্দেশিকা দিলো এমিরেটস কাতারে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে নতুন সিদ্ধান্ত, কিছু বিধিনিষেধ শিথিল ঢাকা থেকে আরব আমিরাতগামী ফ্লাইটে ট্রানজিট যাত্রী পরিবহনের অনুমতি ৩০ মিনিট পরীর বাসার সামনে থেকে ব্যবসায় সবুজ বাতি এমদাদের কাতারের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক চমৎকার: সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আটক হচ্ছেন চিত্রনায়িকা পরীমণি, বাসায় র‌্যাবের অভিযান চলছে লাইভে এসে চিৎকার করছেন পরীমনি, দরজার বাইরে পুলিশ বিয়েতে যাওয়া হলো না বরপক্ষের, নৌকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পরে আছে ২০ জনের লাশ হোটেলে বমি করে ভাঙচুর চালালেন অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড়রা
ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে রইলো বিদেশগামীরা, দুপুরে জানালো ফাইজারের টিকা শেষ

ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে রইলো বিদেশগামীরা, দুপুরে জানালো ফাইজারের টিকা শেষ

ফাইজারের টি’কার দা’বিতে বিক্ষো’ভ করেছেন বিদেশগামী কর্মীরা। তাদের অভি’যোগ, দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসে ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়েও পাওয়া যায়নি ফাইজারের টি’কা। শেষে কর্তৃপক্ষ তাদের মডার্নার টি’কা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু তাতেও বিপ’ত্তি জানান কর্মীরা। পরে কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে তারা মডার্নার টি’কা নিতে রাজি হন। বুধবার (১৪ জুলাই) রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এ পরিস্থিতি তৈরি হয়। তাদের প্রায় সবাই এসএমএস পাওয়ার পর টি’কা নিতে এসেছিলেন।

 

বিদেশগামী কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে টি’কা নিতে এসেছেন তারা। কেউ মাইক্রোবাস ভাড়া করে আবার কেউ কেউ ল’কডা’উনের মধ্যে ভেঙে ভেঙে এসেছেন রাজধানীতে। এরা সবাই মূলত সৌদি আরব এবং কুয়েতগামী কর্মী। কেউ ভোর ৫টা থেকে আবার কেউ কেউ তার আগে থেকে লাইন ধরেছেন টি’কা নিতে। কুয়েত থেকে গত মার্চে ছুটিতে দেশে এসেছিলেন মিরসরাইয়ের এখলাসুর রহমান। আরও কয়েকজন প্রবাসী একসঙ্গে একটি মাইক্রোবাস ভাড়া করে ঢাকায় এসেছেন টি’কা নেওয়ার জন্য। এখলাসুর রমহান জানান, সকাল ৭টায় এসে লাইন ধরেছি। দুপুর বেলা জানলাম, ফাইজারের টি’কা শেষ। এখন তারা বলছে মডার্না নিতে। তাই নিলাম। আমরা গতকাল মেসেজ পাইলাম, রাত ১২টায় রওনা দিয়ে আসছি।

 

ওপর এক সৌদিগামী কর্মী সুমন মডার্নার টি’কা নেওয়ার পর জানান, আমাদের কথা ছিল ফাইজারের টি’কা দেওয়ার। সৌদি থেকে আমার ভাই বলে দিছে ফাইজার নিতে। এখানে সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলাম। মেসেজ পেয়ে ঢাকায় আসছি। ফাইজারের টি’কা শেষ জানলাম কিছুক্ষণ আগে। টি’কা শেষ শুনে অনেকেই বি’ক্ষো’ভ করছিল। পরে কর্তৃপক্ষ এসে বলছে মডার্না নেওয়া যাবে। তাই এখন নিলাম। ফাইজারের টি’কা শেষ হয়ে যাওয়ার খবরে উ’ত্তে’জিত হয়ে যান প্রবাসী কর্মীরা। তারা টিকা কেন্দ্রে হৈচৈ শুরু করেন। পরে হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. খলিলুর রহমান তাদের জানান, ফাইজারের টি’কা দেওয়ার সক্ষ’মতা যেটুকু ছিল সেটুকু আজকে দেওয়া হয়ে গেছে। আপনারা চাইলে মডার্নার ভ্যা’কসি’ন নিতে পারেন। সেটিও সৌদিআরবসহ অনেক দেশেই গ্রহণযোগ্য। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ আমাদের জানিয়েছে, আপনাদের মডার্নার টি’কা দেওয়া যাবে।

 

এ সময় প্রবাসী কর্মীরা টি’কা প্রদান কার্যক্রম নিয়ে নানা অভিযোগ তোলেন। এমনকি সেখানে দায়িত্বরত কিছু আনসার সদস্য টাকা দা’বি করেন বলেও জানান তারা। টাকার বিনিময়ে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টি’কা নেওয়ার ব্যবস্থা করার প্রলোভন দেখানো হয়। তবে অন্য আনসার সদস্যরা টাকা পয়সা লেনদেন করতে মানা করায় সে পথে পা বাড়াননি তারা। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. খলিলুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ফাইজারের টি’কা তাপমাত্রাগত জটি’লতার কারণে সীমিত পর্যায়ে দেওয়া হয়।

 

আগে প্রতি কেন্দ্রে ২০০টি করে দেওয়ার কথা থাকলেও আমাদের অ’ন্তত এক হাজার করে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। আমরা সেভাবেই দিচ্ছি। এ কারণে ফাইজারের টি’কা আজকে শেষ হয়ে যাওয়ায় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ আমাদের মডার্না দিতে বলেছেন। এটাও তাদের গন্তব্য দেশে গ্রহণযোগ্য। কিন্তু তারা ফাইজারই নেবেন। তাই আমরা বলেছি, যারা মডার্না নিতে চান, তারা এখন নিতে পারেন। যারা নিতে চান না তাদের পুনরায় আসতে হবে। আর্থিক লেনদেনের অভি’যোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এমন কিছু ঘটলে আমরা ক’ঠোর ব্যবস্থা নেবো।’

সংবাদটি শেয়ার করুন




© ২০২১ | বিডি রাইট কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design BY NewsTheme