শিরোনামঃ
দেড় কিলোমিটার হেঁটে চাচাকে মাথায় করে হাসপাতালে নিলেন ভাতিজা আটকে পড়াদের আমিরাতে ফেরার জন্য নির্দেশিকা দিলো এমিরেটস কাতারে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে নতুন সিদ্ধান্ত, কিছু বিধিনিষেধ শিথিল ঢাকা থেকে আরব আমিরাতগামী ফ্লাইটে ট্রানজিট যাত্রী পরিবহনের অনুমতি ৩০ মিনিট পরীর বাসার সামনে থেকে ব্যবসায় সবুজ বাতি এমদাদের কাতারের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক চমৎকার: সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আটক হচ্ছেন চিত্রনায়িকা পরীমণি, বাসায় র‌্যাবের অভিযান চলছে লাইভে এসে চিৎকার করছেন পরীমনি, দরজার বাইরে পুলিশ বিয়েতে যাওয়া হলো না বরপক্ষের, নৌকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পরে আছে ২০ জনের লাশ হোটেলে বমি করে ভাঙচুর চালালেন অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড়রা
আইনজীবী মাসুদকে ভালো হয়ে যেতে বললো হাইকোর্ট

আইনজীবী মাসুদকে ভালো হয়ে যেতে বললো হাইকোর্ট

কালো কোট পরে ভাড়ায় বাইক চালানোর ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করার পর থেকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. মাসুদ রানাকে নিয়ে আইনা’ঙ্গনে পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনা-স’মালো’চনা চলছে। কেউ বলছেন, মাসুদ রানা ভা’ইরা’ল হওয়ার জন্য এ কাজ করেছেন। অনেকে বলছেন, মাসুদ রানার মতো ব্যস্ত আইনজীবীর এমন আর্থিক দুরব’স্থা হতে পারে না। আবার আইনজীবীদের অনেকেই তাকে সহমর্মিতা জানাচ্ছেন। বিষয়টি হাইকোর্টের বিচারপতিদেরও ন’জর এড়ায়নি।

 

আইনজীবী অ্যাডভোকেট মাসুদ রানাকে সত’র্ক করে হাইকোর্ট বলেছেন, এসব করে আদালতের ভাবমূ’র্তি ন’ষ্ট করবেন না। ভালো হয়ে যান মিস্টার মাসুদ রানা। সোমবার (১৯ জুলাই) বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ কথা বলেন।

 

আইনজীবী মাসুদ রানার দুটি মাম’লায় দুই আসা’মির জা’মিনের আবেদন ছিল এ কোর্টে। সকালে মা’মলা দুটি শুনানি করতে গেলে সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মিজানুর রহমান তার বাইক চালানোর প্রসঙ্গ তোলেন। তখন আদা’লতের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি তাকে দেখে’ন বলেন, মিস্টার মাসুদ আপনি বিখ্যা’ত হয়ে গেছেন উবার চালিয়ে। এগুলো করবেন না। পরে আদালত আইনজীবী মাসুদ রানার দুই মা’মলায় জামিন প্রশ্নে রুল জা’রি করেন।

 

গত ১৬ জুলাই বাইক রাইডিংয়ের একটি ছবি শেয়ার করে এডভোকেট মাসুদ রানা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আবে’গঘন একটি পোস্ট দেন। ‘মাননীয় প্রধান বিচারপতি, আপনার কোর্ট অফিসার এখন বাইক রাইডার’ এ শিরোনামে দেওয়া পোস্টে তিনি লিখেন, আইনপেশা ল’কডা’উনে সম্পূ’র্ণ ব’ন্ধ। ল’কডা’উন ব্যতীত সময়ে সীমিত পরিসরে ভার্চুয়াল কোর্ট ছিল। কিন্তু এখন ল’কডা’উন স্থগিত হলেও কোর্ট ব’ন্ধ। সব পেশার মানুষ কাজ করতে পারছেন, শুধু আইনজীবীরাই কর্মহী’ন।

 

তিনি আরও লিখেন, দীর্ঘ এক বছর চারমাস উপার্জনহী’ন থাকলেও বাড়িভাড়া, চেম্বার ভাড়া, বার কাউন্সিল, বার অ্যাসোসিয়েশনসহ জীবন-যাপন ব্যয় থে’মে নেই। কোর্ট অফিসারদের (আইনজীবী) চরম দু’র্দিন চলছে। আইনজীবীদের চিফ অথোরিটি মাননীয় প্রধান বিচারপতি, কিন্তু তাকে কিছু বলা যাবে না। আ’দালত অ’বমান’নার অভি’যোগে সনদ চলে যায়।

 

অনেকেই আপ’দকালীন ভিন্ন পেশা গ্রহণ করলেও সং’খ্যাগরি’ষ্ঠরা কোর্ট খোলার আশায় আছেন। কিন্তু আমি অতি সাধারণ, তাই এত কিছু না ভেবে কর্ম এবং উপা’র্জনের লক্ষ্যে আপ’দকালীন এ বাইক রাইডিং পেশা শুরু করলাম। সবার নিকট দোয়া চাই। সবাই ভাল থাকবেন, স্বা’স্থ্যবি’ধি মেনে চলবেন। পরে এ ফেসবুক পো’স্ট নিয়ে তার সাথে কথা বলে গণমাধ্যম, ‘সুপ্রিম কোর্টের ব্যস্ত আইনজীবী এখন বাইক রাইডার!’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। সংবাদটি মুহূর্তেই ভা’ইরা’ল হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© ২০২১ | বিডি রাইট কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design BY NewsTheme