শিরোনামঃ
কাতারে জাতীয় আইনসভা নির্বাচনের মোট প্রার্থীর সংখ্যা ঘোষণা শাহজালাল বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব স্থাপন নিয়ে শুরু নতুন সংকট বিকল্প উপায়ে আমিরাত যাচ্ছেন আটকে থাকা প্রবাসীরা, ব্যয় হচ্ছে ৫ গুণ বেশি কাতারে থাকা বাংলাদেশিদের ফোনে কল দিয়ে চাওয়া হচ্ছে তথ্য, দূতাবাসের সতর্কতা সাইকেল চালিয়ে এক্সপো পরিদর্শনে আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী কাতারে আজ থেকে শ্রমিকদের জন্য কর্মবিরতির মেয়াদ শেষ বিমানে দেশে বা বিদেশে ভ্রমণের আগে যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা জরুরি তিন দিনে বিমানবন্দরের বসছে পিসিআর ল্যাব, দায়িত্ব পেল ৭ প্রতিষ্ঠান বিদেশ থেকে কার্গোতে দেশে মালামাল পাঠানো নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য কাতারে তৃতীয় ডোজের টিকা দেওয়া শুরু, আগে যারা পাবেন অগ্রাধিকার
এক টাকার কাবিনে শাফাতকে বিয়ে করে ভালোবাসার প্রমান দিয়েছিল পিয়াসা

এক টাকার কাবিনে শাফাতকে বিয়ে করে ভালোবাসার প্রমান দিয়েছিল পিয়াসা

অবশেষে বহুল আলোচিত, তথাকথিত মডেল ফারিয়া মাহাবুব পিয়াসাকে আট’ক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। বলা হচ্ছে, ২০১৭ সালে রাজধানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী ধ’র্ষণে’র শি’কার হওয়ার ঘটনায় প্রথম আলোচিত হন মডেল পিয়াসা। কিন্তু আসল ঘটনা তা নয়। এর আগেই আ’লোচিত হয়েছিলেন তিনি।

 

রেইনট্রির ঘটনার প্রায় এক বছর আগেই তিনি আলোচনায় আসেন আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে ব্যবসায়ী শাফাত আহমেদের সাথে বি’বাহবন্ধ’নে আব’দ্ধ হয়ে। তখন গণমাধ্যমকে পিয়াসা নিজেই জানান, ২০১৫ সালের ১লা জানুয়ারি ঢাকায় দীর্ঘদিনের প্রেমিক শাফাতকে (রেইনট্রি ঘটনায় মূল অভিযু’ক্ত এবং পিয়াসার সাবেক স্বামী) তিনি বিয়ে করেছেন।

 

সে সময় কয়েকটি গণমাধ্যমে পিয়াসার পরিচয় দেয়া হয় ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি থেকে গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করা তরুণী হিসেবে। আবার অনেক জায়গায় খবর প্রকাশিত হয়- এনটিভির রিয়েলিটি শো ‘সুপার হিরো সুপার হিরোইন’র অন্যতম প্রতিযোগী ছিলেন পিয়াসা। তবে মডেলিং-অভিনয়ে নিয়মিত হননি তিনি। অনেকদিন কাজ করেছেন এশিয়ান টেলিভিশনের পরিচালক এবং প্রিভিউ কমিটির প্রধান হিসেবে।

 

২০১৭ সালে রেইনট্রির ঘটনার কিছুদিন আগেই গুলশানের একটি কাজী অফিস থেকে শাফাতের পক্ষে তা’লাকের নো’টিশ পাঠানো হয় বলে জানা যায়। ওই ঘটনার পর জানা যায়, তাদের বিয়েতে মাত্র ১ টাকার কাবিন হয়েছিল। এ নিয়ে পিয়াসা গণমাধ্যমকে বলেন, “ভালোবেসে দু’জনের সম্মতিতে বিয়ে করেছিলাম। আর দেনমোহর এক টাকা করার বিষয়টিও দু’জনের সম্মতিতেই হয়। আমার যদি টাকার লো’ভ থাকত তাহলে আমি তো অনেক টাকাই কাবিন করতে পারতাম। তারা কী (আপন জুয়েলার্সের মালিক) বলতে পারবে আমি তাদের কাছ থেকে এক লাখ টাকার গয়না নিয়েছি?”

 

সাবেক পুত্রবধূর কথার সত্যতা পাওয়া যায় আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের কথায়ও। তিনি বলেন, “ছেলের কাছে এক টাকা দেনমোহরের কাহিনী শুনতে চেয়েছিলাম। ছেলে বলেছিল, পিয়াসা তাকে নাকি এত ভালোবাসে তাই এক টাকা দেনমোহর করে তা প্রমাণ করতে চায়। কিন্তু বিয়ের পরদিনই দেখেছি উল্টোটা। মানুষ কত অভিনয় করতে জানে! আমার সম্পদের দিকে পিয়াসার নজর ছিল।

 

তাই তো পিয়াসা এক টাকা দেনমোহর করে ভালোবাসার সম্প’র্কের নামে অভিনয় করেছে। পিয়াসা আমার ছেলেকে বলেছিল, ‘তোমার টাকা চাই না, ভালোবাসা চাই।’ অথচ বিয়ের পর একে একে মুখো’শ উ’ন্মো’চন হতে থাকে। এক টাকার কাবিননামার নামে যে কৌশ’ল করা হয়েছিল তার নেপ’থ্যের ঘটনা বের হতে থাকে। পিয়াসা আমার ছেলেকে দিয়ে আপন জুয়েলার্সের সম্পদ লু’টের চেষ্টা করেছিল। সেই চেষ্টা ভে’স্তে যাওয়ায় শাফাতকে ব্ল্যা’কমে’ইলিং করা হয়।”

সংবাদটি শেয়ার করুন




© ২০২১ | বিডি রাইট কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design BY NewsTheme