শিরোনামঃ
কাতারের লুসাইলে রেস্টুরেন্টে শূকরের মাংসের তৈরি পিৎজার মেনু কাতারে আজ থেকে নতুন সময়সূচীতে গাড়ি ফাহাছ করাতে পারবেন মালিক ও চালকরা রক্তের বিনিময়ে আয়োজন করা কাতার বিশ্বকাপ দেখবেন না তিনি টিকিটে ২৫ শতাংশ ছাড়ের অফার দিলো কাতার এয়ারওয়েজ ৩ বছর আগে কাতার গিয়ে জীবিত দেশে ফিরতে পারলেন না নাসির অতিরিক্ত টাকা নিয়ে দেওয়া হয়নি পছন্দের সিট, কাতার এয়ারওয়েজকে জরিমানা কাতার প্রবাসীকে মেরে ৯ দিন পর লাশ দেশে পাঠায় চার মামাতো ভাই দুবাই প্রবাসীদের জন্য চলবে বিমানের দুইটি অতিরিক্ত ফ্লাইট বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ ২০ এয়ারলাইনসের তালিকায় তৃতীয় কাতার এয়ারওয়েজ কাতারের নেওয়া নতুন সিদ্ধান্তে হতাশ প্রবাসী বাংলাদেশিরা
একদেশ থেকে অন্য দেশে নিয়ে স্থাপন করা যাবে কাতার বিশ্বকাপের অদ্ভুত স্টেডিয়াম

একদেশ থেকে অন্য দেশে নিয়ে স্থাপন করা যাবে কাতার বিশ্বকাপের অদ্ভুত স্টেডিয়াম

একের পর এক চমক নিয়ে হাজির হচ্ছে ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতার। আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য তাদের নির্মিত একটি স্টেডিয়াম হতে যাচ্ছে ‘পরিবহনযোগ্য’। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এটাই হতে যাচ্ছে এ ধরনের প্রথম স্টেডিয়াম। কাতার বিশ্বকাপের জন্য নির্মিত অদ্ভু’ত এই স্টেডিয়ামটির নাম ‘স্টেডিয়াম ৯৭৪’। এর নাম ‘৯৭৪’ রাখা হয়েছে কাতারের আন্তর্জাতিক ডায়াল কোড (+৯৭৪) অনুযায়ী। শুধু কি তাই, এই স্টেডিয়াম নির্মাণ করতে ঠিক ৯৭৪টি শিপিং ক’ন্টেইনার ব্যবহার করা হয়েছে।

 

একসঙ্গে ৪০ হাজার দর্শক এই স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে বসে ম্যাচ উপভোগ করতে পারবেন। ‘স্টেডিয়াম ৯৭৪’-এর ডিজাইন করেছে স্পেনের রাজধানীভি’ত্তিক স্থাপত্যবিষয়ক সংস্থা ‘ফেনউইক ইরিবারেন আর্কিটেক্টস’। ওই সংস্থার অন্যতম অংশীদা’র মার্ক ফেনউইক বলেন, ‘আমরা ভেবে দেখলাম বিশ্বকাপের পর কাতারের অষ্টম স্টেডিয়ামের আর প্রয়োজন থাকবে না। তাই, আমরা ভিন্ন এক পরিকল্পনা সাজালাম। যার ফলে আমরা এমন এক স্টেডিয়ামের ডিজাইন করলাম যা শুধু স্থানান্তরযোগ্যই নয়, সেই সঙ্গে পরিবহনযোগ্যও এবং অন্য কোনো দেশে স্থাপনযোগ্য, তা পুরো স্টেডিয়াম কিংবা তার ভিন্ন অংশও হতে পারে।

 

এসব অংশ দিয়ে ক্রীড়া স্থাপনাও নির্মাণ করা সম্ভব। ‘স্টেডিয়াম ৯৭৪’-কে ২১ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে হতে যাওয়া ২০২২ বিশ্বকাপের পর ভে’ঙে ফেলা হবে। অর্থাৎ ১৮ ডিসেম্বরের পর কোনো একদিন এই স্টেডিয়ামের বিভিন্ন অংশ খুলে ফেলা হবে। এরপর স্টেডিয়াম নির্মাণে ব্যবহৃত শি’পিং কন্টেইনারগুলোকে খুলে জাহাজে করে অন্য কোনো দেশে নিয়ে যাওয়া হবে।

 

হতে পারে পরের বিশ্বকাপেই হয়ত একইরকম স্টেডিয়াম দেখা যাবে। তবে কাতারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, স্টেডিয়ামটি কোনো অনু’ন্নত দেশে দান করা হবে, যারা এটা ব্যবহার করে তাদের ফুটবল উন্নয়নে কাজে লাগাতে পারবে। এরইমধ্যে স্টেডিয়ামটির কার্যকারিতা পরী’ক্ষা করে দেখা হয়েছে গত নভেম্বর-ডিসেম্বরে হওয়া আরব কাপে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© ২০২১ | বিডি রাইট কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design BY NewsTheme