প্রেমিকাকে ফিরে পেতে ৬২ বছরেও অবিবাহিত ছিলেন আশরাফ!

প্রেমিকাকে ফিরে পেতে ৬২ বছরেও অবিবাহিত ছিলেন আশরাফ!

বিয়ে ছাড়াই কেটে গেল ৬২ বছর। কা’টছিল একাকিত্ব সময়। তবে শেষ বয়সে বদলে গেল সি’দ্ধান্ত। পড়লেন প্রেমে। তাও ৫৪ বছর বয়সী নারীর। জীবনের নিঃস’ঙ্গতা কা’টাতে সেই প্রেমিকাকেই করেছেন বিয়ে। এক হাজার মানুষের উপস্থিতিতে এক লাখ এক টাকা দেনমোহরে প্রেমিকা ৫৪ বছর বয়সী রানু বেগমকে বিয়ে করেন ৬২ বছরের আশরাফ আলী ব্যাপারী। বানু বেগমের ঘরে ‍এক ক’ন্যাসন্তান থাকলেও আশরাফ ‍আলী ছিলেন অ’বিবাহিত।

 

শনিবার রাতে ভালোবাসার এ বিয়ে হয়েছে বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার চাখার ইউনিয়নের সোনাহার গ্রামের জননেত্রী শেখ হাসিনা আশ্রয়ণ প্রক’ল্পে। তারা চাখার ইউনিয়নের সোনাহার গ্রামের জননেত্রী শেখ হাসিনা আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসি’ন্দা। জানা যায়, একা’কিত্বের জীবনে আশরাফ আলীকে সঙ্গী হিসেবে বেছে নেন বানু বেগম। প্রথমে প্রেম এরপর শত বা’ধা পেরিয়ে দুজনের এক হওয়ার সিদ্ধান্ত। অবশেষে বেশ ধুমধামের পরিবেশে তাদের বিয়ে হয়।

 

চাখার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মজিবুল হক টুকু জানান, পাত্র আশরাফ আলী ব্যাপারী বিয়ে করেননি। তার কোনো সংসার নেই। বৃ’দ্ধ বয়সে বেশ একা’কিত্বের জীবন কা’টাতেন আশরাফ। পরে তিনি এ নিঃস’ঙ্গতা কা’টাতে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। একই প্রকল্পের বাসিন্দা বানু বেগমের স্বামী মারা যাওয়ার পর মেয়ে ও মেয়ে জামাইয়ের সঙ্গে থাকলেও নিঃ’সঙ্গ জীবন কা’টা’তেন তিনি।

 

এ অবস্থায় তিনি বিয়ে করার সি’দ্ধান্ত নেন। এর মধ্যে দুজনের মধ্যে প্রে’মের সম্প’র্ক গড়ে উঠলে অবশেষে পরিবারের সম্মতিতে শনিবার রাতে খুব ঘটা করেই তাদের বিয়ে হয়। এমন আয়োজন এলাকাবাসীকে অনেকটাই কৌতূহলী করে তোলার ফলে বিয়ে দেখতে অনেকেই ভি’ড় জমান ওই বাড়িতে। চেয়ারম্যান আরো বলেন, বিয়েতে অন্তত এক হাজার গ্রামবাসী উপস্থিত ছিলেন এবং বেশ ধুমধাম করেই বিয়ের কাজ সম্পন্ন হয়।

 

এলাকাবাসী নবদম্পতির দীর্ঘায়ু কা’মনা করে দোয়া করেন। এ বিয়ের মধ্য দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা আশ্রয়ণ প্রকল্পে প্রেমের দৃ’ষ্টান্ত স্থাপন হয়েছে। আমিসহ আমার এলাকার সবাই তাদের এ বিয়েতে খুশি। দাম্পত্য জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত যেন ভালো সময় কা’টে, সে জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন বৃদ্ধ আশরাফ আলী ব্যাপারী ও বৃদ্ধা বানু বেগম।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© ২০২১ | বিডি রাইট কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design BY NewsTheme